1. nokhatronews24@gmail.com : ajkarsatkhiradarpan darpan : ajkarsatkhiradarpan darpan
  2. install@wpdevelop.org : sk ferdous :
কালের আবর্তে হারিয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প - আজকের সাতক্ষীরা দর্পণ
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন
১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ খবর :
📰কুশখালীতে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দের সাথে বিওপির মতবিনিময় সভা📰৭ই মার্চ উদযাপন উপলক্ষে সাতক্ষীরায় প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত📰জাতীয় যুব সম্মাননা পেলেন সাতক্ষীরা’র সুব্রত হালদার📰শপথ নিলেন সংরক্ষিত নারী আসনের এমপিরা📰সকলের প্রচেষ্টায় ভূমিসেবাকে স্মার্টসেবায় রূপান্তর করতে চাই-ভূমিমন্ত্রী📰সাতক্ষীরায় পাইকারি ও খুচরা বাজারে বেড়েছে গমের দাম📰আশাশুনিতে হরেক রকম ফসলে বানভাসিদের মুখে হাসি📰পিপিএম সেবা পদক পেলেন আশাশুনির বায়জিদ📰সাতক্ষীরা উপজেলা পরিষদ আয়োজনে জাতীয় স্হানীয় সরকার দিবস পালন📰মাসজিদে কুবা সাতক্ষীরা জনকল্যাণে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে চক্ষু চিকিৎসা ক্যাম্প

কালের আবর্তে হারিয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প

প্রতিবেদকের নাম :
  • হালনাগাদের সময় : রবিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২১
  • ৬৫ সংবাদটি পড়া হয়েছে

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি: কালের আবর্তে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প। নানান সমস্যা আর পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে আজ সংকটের মুখে এ শিল্পরা। উপজেলার পারুলিয়া ইউনিয়নের কুমোর পাড়া, সখিপুর কুমোর পাড়া যেন শিল্পীরা তুলিতে আঁকা একটি সোনালী ছবি। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে এ মৃৎশিল্প। অসংখ্য কুটিরের নয়ন ভিরাম মৃৎ শিল্পীদের যা সহজেই যে কারোর মনকে আনন্দিত করে। এক সময় উপজেলার এই কুমোর পাড়া গুলো মৃৎ শিল্পীর জন্য বিখ্যাত ছিল। বিজ্ঞানের জয় যাত্রা প্রযুক্তির উন্নয়ন নতুন নতুন শিল্প সামগ্রীর প্রসারের কারণে এবং প্রয়োজনীয় পৃষ্টপোষকতা ও অনুকুল বাজারের অভাবে এ শিল্প আজ বিলপ্তির পথে।
সূত্রে জানা যায়, মৃৎ শিল্পীদের অধিকাংশ পাল সম্প্রদায়ের প্রাচীন কাল থেকে ধর্মীয় অর্থ-সামাজিক কারণে মৃৎ শিল্পে শ্রেণীভুক্ত সমাজের মধ্যে সীমাবন্ধ ছিল। পরে অন্য সম্প্রদায় ও মৃৎ শিল্পকে পেশা হিসাবে গ্রহণ করে। বর্তমান বাজারে দস্তা, এ্যালুমিনিয়াম ও প্লাষ্টিকের ভেজস পত্রের চাহিদার কারনে এখন আর আগের মত মাটির জিনিসের চাহিদা কমতে চলেছে। ফলে ক্রেতারা মাটির জিনিসপত্র আগের মতো আগ্রহের সঙ্গে ক্রয় করে না। এতে করে প্রতি নিয়ত লোকসান গুনতে হচ্ছে। সে কারণে অনেক পুরানো শিল্পরাও পেশা বদল করতে বাধ্য হচ্ছেন। যুগের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে মাটির জিনিস পত্র তার পুরানো ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলছে। আর এ পেশায় যারা জড়িত এবং যাদের জীবিকার একমাত্র অবলম্বন মৃৎশিল্প, তাদের জীবন যাপন একেবারেই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। দুঃখ কষ্টের মধ্যে দিন কাটালেও উপজেলায় মৃৎশিল্পরা এখনো স্বপ্ন দেখেন। কোন একদিন কদর বাড়বে মাটির পণ্যের। সেদিন হয়তো আবার তাদের পরিবারে ফিরে আসবে সুখ শান্তি। আর সেই সুদিনের অপেক্ষায় আজও দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তার।
এব্যাপারে সখিপুর কুমোর পাড়া গ্রামের জিষ্ণু পাল বলেন, মাটির জিনিসের বিক্রয় একে বারে নাই বললেও চলে। এতে করে আমরা ন্যায্য মূল্যে পাই না। আগের ছাড়া এখন প্রায় অর্ধেক মূল্যে বিক্রয় করতে হচ্ছে।
বিশিষ্ট জনরা মনে করেন,বর্তমান সমায়ে আধুনিকতার ছোঁয়ায় মৃৎশিল্পের তৈরী কৃত পণ্যের চাহিদা কম। এছাড়া বিজ্ঞান সম্মত ভাবে প্রস্তুত করা জিনিস ব্যবহ্রা করছেন সাধারণ ক্রেতারা, তাই মৃৎশিল্প দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। আর আমরা প্রাচীন সংস্কৃতিকে দিন দিন হারিয়ে ফেলছি। তাই মৃৎশিল্পকে বাঁচিয়ে রেখে বাজার সৃষ্টি করা জরুরী।

আপনার সামাজিক মিডিয়ায় এই পোস্ট শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর :

সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতি:

এম এ কাশেম ( এম এ- ক্রিমিনোলজি).....01748159372

alternatetext

সম্পাদক ও প্রকাশক:

মো: তুহিন হোসেন (বি.এ অনার্স,এম.এ)...01729416527

alternatetext

বার্তা সম্পাদক: দৈনিক আজকের সাতক্ষীরা

সিনিয়র নির্বাহী সম্পাদক :

মো: মিজানুর রহমান ... 01714904807

নিবার্হী সম্পাদক :

এস.এম আবু রায়হান (বি.বি.এ)...01735045426

© All rights reserved © 2020-2023
প্রযুক্তি সহায়তায়: csoftbd